liveখুলনাসারাদেশ

শিশু সন্তানের খোরপোষ দিতে নারাজ জন্মদাতা পিতা

মোঃ রাসেল মোল্লা, (নড়াইল) ষ্টাফ রিপোর্টারঃ

নড়াইল সদর উপজেলার কলোড়া ইউনিয়নে স্বামী স্ত্রীর তালাকের পরে দুই বছরের শিশু সন্তানের খোরপোষ দিতে বাবার গড়িমসি।

জানা গেছে আগদিয়া গ্রামের ফকর শেখের ছেলে মিঠুন শেখের (৩২)সাথে একই এলাকার (মৃত) সেলিম চৌধুরির কন্যা পুতুলের(২২) ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক ২৫/১০/২০১৯ তারিখে বিবাহ হয়।তাদের সুখের সংসার চলছিলো এবং একটি পুত্র সন্তান জন্ম দেয়।তারপর তাদের ভিতর কিছু আনুসাংগিক ঝামেলার কারনে তারা একসাথে থাকবেনা বলে সিদ্ধান্ত নেয় এবং তাদের তালাক হয়ে যায়।

পরবর্তীতে তাদের উভয় সম্মতিক্রমে আবারো বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয় কিন্ত তারপর আবারো তারা বিভিন্ন ঝামেলা করে গত ২২/০৪/২০২২ তারিখে নিজেদের ভিতর তালাক করিয়ে নেয়। সে সময় স্বামী (মিঠুন) স্ত্রীকে (পুতল) তার দেনমোহর সহ তিন মাসের খোরপোষ দিয়ে দেয় এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে সাক্ষী রেখে একটি ১০০ টাকার নোটারী পাবলিক স্টাম্পে তাদের দুই বছরের শিশু সন্তান সামিউল ইসলাম তান্নার খোরপোষ বাবদ মাসিক এক হাজার টাকা দেওয়ার কথা উল্লেখ্য থাকলেও মিঠুন মাত্র ১০০০ টাকা দিয়ে আর কোন খোজ খবর নেয়নি এ কারনে পুতুল বিজ্ঞ মোকাম আদালতে সন্তানের খোরপোষ দিতে অস্বীকার উল্লেখ্য করে মামলা দায়ের করেন।

 

এ বিষয়ে পুতুল সাংবাদিকদের জানান আমার সন্তান এখন বড় হচ্ছে তার খরচ বাড়ছে, আমার বাবাও ক্যন্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এখন মা আর আমি অনেক কষ্টে বেচে আছি এখন যদি এই সন্তানের খরচ তার পিতা না দেয় আমি কিভাবে চালাবো তাই বাধ্য হয়ে আমি আদালতে মামলা করি। আমি আমার সন্তানের খোরপোষ নিয়মিত দাবি করছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় সাবেক মহিলা মেম্বার রোজিনা বেগম জানান মিঠু তার সন্তানের জন্য আমার মাধ্যম দিয়ে একদিন এক হাজার টাকা দিয়েছিলো তারপর আর কোন টাকা দেয়নি এমনকি তার সন্তানকে দেখতেও আসেনা।

স্বামী (মিঠুন) এর সাথে সরাসরি কথা বললে তিনি বলেন আমি আমার সন্তানকে টাকা দিতে চেয়েছি কিন্ত তারা মহিলা মেম্বার রোজিনাকে বলেন ওই এক হাজার টাকা নিবেনা তার পর আমিও আর জোর করিনি কিন্ত কিছুদিন পর জানতে পারি তারা আমার নামে কোর্টে মামলা করে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button