অপরাধআইন ও বিচারখুলনাজেলা সংবাদসারাদেশ

রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের গাড়িচালক হত্যার মূল আসামি গ্রেপ্তার

পাবনার রূপপুরে গাড়িচালক সম্রাট হত্যা মামলার আসামী সম্রাটকে (৩০) রাজধানীর হাতিরঝিল থানাধীন বাংলামোটর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব (RAB)।

গতকাল (২৬ মার্চ) তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-১২ এর অধিনায়ক পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মারুফ হোসেন, পিপিএম।

নিহত সম্রাট পিতা- মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক, সাং- মধ্য অরনকোলা রিফুজি কলোনী, থানা-ঈশ্বরদী, জেলা- পাবনা। প্রায় তিন বছর যাবত রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিকিম কোম্পানীর পরিচালকের গাড়ি চালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গ্রেফতার মোঃ আব্দুল মমিন (৩২) পাবনার ঈশ্বরদী থানার বাঁশেরবাদা গ্রামের মোঃ বাহাদুর খাঁর ছেলে। তাকে আদালতে পাঠানোর পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 

জানা যায়, চালক সম্রাট প্রতিদিন রাত সাড়ে ১০টায় ডিউটি শেষে বাড়িতে ফিরতেন।  কিন্তু গত ২৩ মার্চ সম্রাট ডিউটি শেষে বাড়িতে না ফিরলে তার পরিবারের লোকজন তার মোবাইলে ফোন দিলে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পায়। পরবর্তীতে ২৪ মার্চ নিকিম কোম্পানির অন্য চালকদের কাছে নিহতের বাবা সম্রাটের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তারা জানায়, সম্রাট গত রাত ৮টা ১০ মিনিটে রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ডিউটি শেষ করে গাড়ি নিয়ে অফিস থেকে বেরিয়ে যায়।

 

পরে পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে জানতে পারেন, সম্রাট বাঁশেরবাদা মধ্যপাড়ায় তার বন্ধু মোঃ আব্দুল মমিনের বাসায় গিয়েছিল। সেই সূত্রে সম্রাটের পরিবারের লোকজন মমিনের বাসায় গিয়ে মমিনকে না পেয়ে মমিনের স্ত্রী মোছাঃ সীমার কাছে সম্রাটের ব্যাপারে জানাতে চাইলে সে উত্তেজিত হয় এবং সম্রাটের পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলা থেকে বিরত থাকে।

 

পরে ২৫ মার্চ কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানার চর সাদিপুরে আড়িয়াবান্দা গ্রামের সিলাইদহ ঘাট থেকে সাদা জিপ গাড়িসহ চালক সম্রাটের বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করে কুমারখালী থানা পুলিশ।

আটক আসামি মোঃ আব্দুল মমিনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধারনা করা হয়, পরকীয়া প্রেমের কারনে ব্যক্তিগত প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হতে পারে।

এ ব্যাপারে নিহতের বাবা বাদী হয়ে পাবানা জেলার ঈশ্বরদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button