রংপুরসারাদেশ

মিথ্যা সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

দিনাজপুরের খানসামার ৪২নং মধ্য আঙ্গারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো.সিরাজুল ইসলামের নামে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া মিথ্যা খবর প্রচার করায় ও মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন এর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে মো.সিরাজুল ইসলামের কন্যা মৌসুমী আক্তার ও স্ত্রী রাহেনা বেগম।
বৃহস্পতিবার (০২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে খানসামা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন। ছাত্রীদের যৌন হয়রানি অভিযোগ তুলে খবর প্রকাশ করেছিল বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া। এছাড়াও গত বুধবার খানসামা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছিল।
সংবাদ সম্মেলনে সহকারী শিক্ষক মো.সিরাজুল ইসলামের কন্যা মৌসুমী আক্তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার বাবা দীর্ঘ ৩৫ বৎসর ধরে সুনাম মর্যাদার সহিত এই মহান পেশার দায়িত্ব পালন করে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে একটি কু-চক্র মহল আমার বাবাকে সামাজিক ভাবে হেও প্রতিপন্ন করার লক্ষে সম্পূন্ন মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন অপপ্রচার প্রচার করছে।
আমার বাবার এই মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন সংবাদ ও সংবাদ সম্মেলনের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আপনারা নিশ্চই আরো অবগত আছেন। সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। যেখানে প্রধান শিক্ষকের কিছু কথা উঠে এসেছে। এতে কি প্রমাণ হয়? আমার বাবা কি সত্যিই আপরাধী? নাকি আমার বাবাকে ফাসানো হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, এর পিছনে মূল কারণ পূর্ব শত্রুতা। আমাদের সামাজিক ভাবে ছোট করার উদ্দেশে আমার বাবার বিরুদ্ধে নানা প্রকার মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন অপপ্রচার করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। যারা গত বুধবার আমার বাবার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা কারা এবং তাদের অতীত কি? তা আপনারা একটু খোঁজ-খবর নিলেই জানতে পারবেন।
এছাড়াও আমার বাবাকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ডি জে এডমিন ময়নুল ইসলাম ফোন দিয়ে এক লক্ষ টাকা দাবি করেন। এই টাকার বিষয়টি যেন কেউ না জানে এমনটি বলছিলেন তিনি।
পরিশেষে আমার বাবার নামে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদ জানিয়ে আমি আমার কথা শেষ করছি এবং আমি এই অপপ্রচার সুষ্ঠ তদন্ত দাবি করছি। আমার বাবার বিরুদ্ধে এ ধরনের একটি মিথ্যা প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ায় আমরা বিস্মিত। এ জন্য আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button