বিনোদন

‘পাঠান’ মুক্তিতে যা বলছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা

নানা জল্পনা-কল্পনা ও বিতর্কের পর অবশেষে বাংলাদেশে মুক্তি পেতে যাচ্ছে শাহরুখ খান অভিনীত বলিউড চলচ্চিত্র ‘পাঠান’। আগামী ৫ মে দেশের সিনেমা হলগুলোতে মুক্তি পাবে বহুল আলোচিত এই ছবিটি। বাংলাদেশে এই ছবিটি আমদানি করে নিয়ে আসছে অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট। তবে দেশে ঈদ উপলক্ষে ৮ টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে, শাকিব খানের ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’, অনন্ত-বর্ষা জুটির ‘কিল হিম’, বাপ্পি চৌধুরী-জাহারা মিতুর ‘শত্রু’, সজল-পূজা-রোশানের ‘জ্বীন’, ইয়াশ রোহান-ঐশির ‘আদম’, রোশান-ববি-মাহার ‘পাপ’, জয় চৌধুরী-অপু বিশ্বাসের ‘প্রেম প্রীতির বন্ধন’ । সিনেমা দেশের সব কটি হলেই ভাল চলছে বলে জানা যায়। এই মুহুর্তে ৫মে বিদেশি সিনেমা পাঠান দেশে মুক্তি দেয়া হলে সিনেমা গুলো ক্ষতির সম্মুখীন হবে বলে মনে করছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। তাতে করে প্রযোজকেরা তাদের লগ্নীকৃত অর্থ উঠিয়ে আনতে পারবে না বলেও মনে করছেন অনেকে। এই মুহুর্তে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই মনে করছে এতদিন যখন অপেক্ষা করেছি আর একটা মাস পর যদি বিদেশি এই সিনেমা মুক্তি দেয়া তাতে করে দেশের সিনেমা গুলো ভালো ব্যবসা করতে পারবে। তাতে আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্র ক্ষতির মুখে পরবে না। ৫ মে পাঠান মুক্তি না দিতে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই আবেদন জানিয়েছেন।

 

বাংলাদেশে পাঠান মুক্তির বিপক্ষে বরাবরই বাংলা চলচ্চিত্রের মুভিলর্ড খ্যাত অভিনেতা ডিপজল।যখন দেশে বিদেশী সিনেমা আমদানি নিয়ে পক্ষ-বিপক্ষের বিতর্ক চলছে তখনও বিদেশী সিনেমার আমদানি ঠেকাতে বেশ সরব ছিলেন ডিপজল। তিনি বলেছিলেন,’আগে যখন সিনেমায় অস্থিরতা ছিলো, তখন তো আমরাই টেনে নিয়ে গেছি বাংলা সিনেমাকে। হিন্দি সিনেমা সমাধান নয়। এ ধরনের চিন্তা করা আমাদের জন্য মঙ্গলজনক নয়। আমার বিশ্বাস বাংলা সিনেমা ঘুরে দাঁড়াবে। হিন্দি সিনেমা নয়, বাংলা সিনেমা দেখতে চায় এদেশের মানুষ। অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে যখন দেশে পাঠান মুক্তি পাচ্ছে ।এদিকে দেশে ঈদে মুক্তি প্রাপ্ত ৮ টি সিনেমা ভালো চলছে। ঠিক এই মুহুর্তে পাঠান রিলিজ দেয়া চলচ্চিত্রের জন্য কতটা মঙ্গলজনক হবে জানতে চাইলে মুভিলর্ড খ্যাত ডিপজল বলেন, পাঠান নিয়ে আর কিছু বলতে চাই না।যা বলার বলছি আমি। পাঠানকে আহ্বান জানানোর কিছু নাই। এটা নিয়ে আর বিতর্ক করতে রাজি না। এটা নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে।

 

পাঠান মুক্তি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি কাজী শোয়েব রশীদ বলেন, এটা তো ভালো। অনেকদিন পর দ্বারটা উন্মোক্ত হল। আমরা তো চাই বিদেশী ছবি আসুক। সবার আগে তো দেশপ্রেম। আমাদের দেশে যারা নবাগত শিল্পীরা এসেছেন তারা হোচট খান প্রথমে। প্রোডিউসাররা আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। ভবিষ্যতে আর তারা ব্যবসায় লগ্নি করবে না। একটা মাস দুইটা মাস দেরী করে আসলে তো আর ক্ষতি নেই। এই ছবিটা তো অলরেডি আমাদের ঈদের আগে চালানোর কথা ছিলো তখন চালাতে পারিনি। দেখা যাক ইনশাল্লাহ সবাই আলোচনা করে এটা যদি পিছানো হয়, আমার মনে হয় আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য ভালো হবে। ব্যাক্তি স্বার্থের চেয়ে তো আমার দেশটা আগে। আমার ইন্ডাস্ট্রিটা আগে।

 

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শরফুদ্দিন এলাহী সম্রাট বলেন, পাঠান মুক্তি মুলত আমাদের দাবী ছিলো, কিন্তু বর্তমানে ঈদে মুক্তি পেয়েছে ৮ টি ছবি। ৮ টি ছবি যদি আমরা চালাই তাহলে আমরা কুরবানী ঈদ পর্যন্ত চলে যেতে পারব। পাঠান যদি এখন রিলিজ দেয়া হয় তাহলে ৮টি ছবির প্রোডিউসার, ডিরেক্টর সব শুয়ে পরবে রাস্তায়। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে দেশপ্রেম আগে। একসময় আমাদের ছবি ছিলো না বলে আমরা পাঠান চেয়েছিলাম। এখনতো আমাদের সিনেমা আছে। পাঠান পরবর্তীতে রিলিজ দেয়া হোক কোন একটা ডেইট করে।এই মুহুর্তে আমরা পাঠান চাচ্চি না। কারণ আমাদের ৮ টা প্রোডিউসার আছে। দেশের প্রোডিউসার তো মাইরা লাভ নাই।

 

তথ্যমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে চিত্রনায়ক আদর আজাদ বলেন, পবিত্র ঈদুল ফিতরে আমার অভিনীত ‘লোকাল’ চলচ্চিত্রসহ ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানের ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’, অনন্ত-বর্ষা জুটির ‘কিল হিম’, বাপ্পি চৌধুরীর ‘শত্রু’, সজল-পূজা-রোশানের ‘জ্বীন’, ইয়াশ রোহান-ঐশির ‘আদম’, রোশান-ববি-মাহার ‘পাপ’, জয় চৌধুরী-অপু বিশ্বাসের ‘প্রেম প্রীতির বন্ধন’ এই ৮ টি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। ‘লোকাল’ সহ প্রত্যেকটি চলচ্চিত্রই খুব ভাল চলছে, এমন অবস্থায় যদি ২০০+ কোটি টাকা বাজেটের বলিউড সিনেমা আমাদের দেশের হলগুলিতে মুক্তি পায় সেক্ষেত্রে এই প্রত্যেকটি চলচ্চিত্র অর্থনৈতিকভবে লসের সম্মুখীন হবে। অন্যদিকে বর্তমানে মোট চালু হওয়া ১৬০ টি হলে যদি সিনেমাগুলো ঘুরে ঘুরে চলে তাহলে আমাদের দর্শক সিনেমাগুলো দেখতে পাবে এবং আমাদের প্রযোজকরা লাভবান হবেন। তাই সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি আমাদের চলচ্চিত্র গুলোর স্বার্থে ও প্রযোজকদের স্বার্থে, দেশের বাহিরের সিনেমাগুলো এদেশের হলে এই পরিস্থিতিতে মুক্তির অনুমতি না দিলে আমাদের সিনেমা শিল্প উপকৃত হবে এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু প্রতিষ্ঠিত ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত আমাদের এই চলচ্চিত্র শিল্প দেশের ঐতিহ্য এবং সামাজিকতা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখবে বলে আমি মনে করি।

 

যোগ করে আদর আরও বলেন, অনেকে বলছেন আপনারা যদি ভালো সিনেমা নির্মাণ করেন তাহলে বলিউডের সিনেমা আসলেও কোন সমস্যা হবে না! সত্যি বলতে আমরা আমাদের সাধ্য অনুযায়ী ভলো সিনেমা নির্মাণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। তাই বলে ২০০+ কোটি টাকার সিনেমা সাথে যদি ৫০লক্ষ টাকা থেকে ৩কোটি টাকার সিনেমাকে প্রতিযোগিতায় নামান তাহলে তো সেটা সঠিক বিবেচনা হবে না। আমরাও চাই বিদেশি সিনেমা আসুক, আমাদের সিনেমাও বিদেশে চলুক। সেটার জন্যও তো আমাদেরকে একটু সময় দিতে হবে। দর্শকদের হলমুখী হতে হবে। তাতে প্রযোজকরা আত্মবিশ্বাসী হবে এবং আস্তে আস্তে বাজেটও বৃদ্ধি পাবে। আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পে যে পরিমাণ দক্ষ এবং কর্মঠ শিল্পী-টেকনিশিয়ান আছে তাতে করে আমরা বিশ্বাস করি তখন ১০-২০ কোটি টাকা বাজেটের সিনেমা নিয়েও ২০০+ কোটি টাকার সিনেমার সাথে প্রতিযোগিতা করতে সক্ষম হবো।

 

তথ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়ে চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী সোশ্যাল মিডিয়ার লিখেন, আমি বাপ্পি চৌধুরী বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা। এই ঈদে আটটি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে এবং আটটি চলচ্চিত্র খুব ভালো চলছে এমন অবস্থায় যদি ১৬০ টি হলে সিনেমা গুলো ঘুরে ঘুরে চলে তাহলে আমাদের দর্শক সিনেমাগুলো দেখতে পাবে এবং আমাদের প্রযোজকরা লাভবান হবেন এমন পরিস্থিতিতে যদি এখন দেশের বাহিরের কোন সিনেমা আমাদের দেশের রিলিজ হয় তাহলে আমাদের সিনেমাগুলো দর্শক দেখতে পাবে না এবং প্রযোজক এতে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তাই বিনীত আবেদন জানাচ্ছি আমাদের চলচ্চিত্রগুলোর জনগণের স্বার্থে ও প্রযোজকের সাথে এবং নতুন প্রযুক্তির আগ্রহের স্বার্থে দেশের বাহিরের সিনেমা গুলো এ দেশের হলে এখন চলতে পারমিশন না দিলে আমাদের সিনেমা উপকৃত হবে এবং আমাদের এই চলচ্চিত্র শিল্প দেশের ঐতিহ্য এবং সামাজিকতা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখবে বলে আমি মনে করি।

 

সিনিয়র চলচ্চিত্র সাংবাদিক আহমেদ তেপান্তন বলেন, ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত আমাদের সিনেমা ভালই চলছে। তাই এই মুহুর্তে বিদেশী সিনেমা চালালে দেশীয় সিনেমার প্রযোজক,পরিচালক,শিল্পীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়ার জন্য তথ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

 

চলচ্চিত্র নির্মাতা সাইফ চন্দন বলেন, ঈদের বাজারে ৮টি বাংলা ছবির বাজার যখন জমজমাট ঠিক তখন ২৫০ কোটি টাকার ভারতীয় ছবি পাঠান মুক্তি আমাদের জন্য সত্যি হুমকি স্বরূপ। দয়া করে ৫মে মুক্তি না দিয়ে আমাদের আরো ৭টা দিন সময় দিন। এভাবে (বাংলা চলচ্চিত্রের) আমাদের ক্ষতি করবেন না। এখনও সিনেমা প্রেমী দর্শক আমাদের সিনেমা দেখছেন।

 

শাহরুখ খান ও দীপিকা পাডুকোন অভিনীত ‘পাঠান’ ভারতে মুক্তি পেয়েছে গত ২৫ জানুয়ারি। মুক্তির পরপরই বিশ্বব্যাপী ক্রেজ তৈরি করে ছবিটি। সেই সঙ্গে বলিউডের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়ে বিশ্বব্যাপী হাজার কোটি রূপির বেশি ব্যবসা করে এই ছবি। এদিকে বাংলাদেশে শাহরুখ খানের প্রচুর ভক্ত থাকায় তাদের মধ্যেও এ ছবিটি নিয়ে আগ্রহ দেখা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় ৫ শর্তে ভারতীয় উপমহাদেশের বিভিন্ন ভাষায় নির্মিত সিনেমা আমদানি করার অনুমতি দেয়। এসব শর্তের মধ্যে ছিল- সিনেমাগুলো বাংলাদেশি সংস্থা কর্তৃক আমদানি করতে হবে। এ বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি সেক্রেটারি (চলচ্চিত্র) সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি অফিস আদেশ জারি করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button