অপরাধআইন ও বিচাররংপুরসারাদেশ

পঞ্চগড়ে একটি ক্লিনিকের অবহেলায় গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সুরমা জেনারেল হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষের অবহেলায় সাবিত্রী রানী (২২) নামে এক গর্ভবতী নারীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ওই নারীকে সিজারের মাধ্যমে সন্তান প্রসবের জন্য সেখানে নেওয়া হয়েছিল। আল্ট্রাসনোগ্রাম করে দেখা যায় সন্তানটিও গর্ভে মারা গেছে। শনিবার রাতে এ ঘটনার পর রোগীর স্বজনরা ক্লিনিকের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এরপর গভীর রাতে লক্ষাধিক টাকার বিনিময়ে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে আপসরফা করে। এ সময় মারা যাওয়া নারীর স্বজন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। ওই নারী স্বামী ৬৫ হাজার টাকা পেয়েছেন বলে জানান।

গর্ভবতী নারীর স্বজনরা দৈনিক সত্যের কণ্ঠকে বলেন, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের কমল চন্দ্র রায় তার গর্ভবতী স্ত্রী সাবিত্রী রানীকে শনিবার বিকালে সিজার করার জন্য বোদা উপজেলা শহরের সুরমা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। প্রসূতির অবস্থা গুরুতর হলেও সময়ক্ষেপণ করতে থাকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। দেড় ঘণ্টা ধরে অপারেশন থিয়েটারে রাখা হয় তাকে। সন্ধ্যায় ডাকা হয় বোদা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের গাইনি চিকিৎসক ডা. রহমতউল্লাহ ও ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট মো. শামসুল হুদাকে। চিকিৎসকরা গিয়ে রোগীর অবস্থা দেখেই তাকে অন্যত্র স্থানান্তরের নির্দেশ দেন। তড়িঘড়ি করে তাকে বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গর্ভেই মারা যায় বাচ্চাটি। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ ক্লিনিকেই মৃত্যু হয় ওই নারীর। দায় এড়ানোর জন্য ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়। তার মৃত্যুর পর ক্ষুব্ধ স্বজনরা ক্লিনিকের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। ওই নারীর স্বামী কমল রায় বলেন, ‘মামলা করে কী হবে? অযথা ঝামেলা বাড়বে। স্ত্রী-সন্তানকে তো ফেরত পাবো না?’ তিনি ৬৫ হাজার টাকা পাওয়ার কথা স্বীকার করেন।

বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. আনন আফসান বলেন, ওই গর্ভবতী নারীকে হাসপাতালে আনার আগেই মৃত্যু হয়েছে।

সুরমা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক সুরমা বেগম অবহেলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই রোগীকে আমরা হাত দিইনি। ডাক্তাররা দেখে সঙ্গে সেঙ্গে রেফার করতে বলেন। আমরা রেফার করে দিয়েছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button