অপরাধরংপুরসারাদেশ

পঞ্চগড়ের তালমা-করতোয়া নদীর পাড় কাটার মহোৎসবে মেতেছেন অসাধু বালু ব্যাবসায়ীরা

পঞ্চগড় সদর উপজেলার করতোয়া-তালমা নদীর পাড় কাটার মহোৎসবে মেতেছেন একশ্রেণীর অসাধু বালু ব্যাবসায়ী।এসব অসাধু বালু ব্যবসায়ী তালমা ও করতোয়া নদীর পাড় ভ্যাকু,ট্রাক্টর মাধ্যমে অবাধে কাটছে।দেখে মনে হবে যেন মাটি কাটার উৎসব চলছে নদী পাড়ে ।

এতে হুমকিতে ফসলি জমিসহ ঘরবাড়ি ও সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ের বাঁধ।সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে,সদর উপজেলার নলকুড়া এলাকার একটি বালু খেকো সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে করতোয়া নদীর বাঁধ ঘেষে ভ্যাকু মেশিন দিয়ে রাতের আধাঁরে বালু কেটে বিক্রি করছে। তালমা ডিয়াবাড়ি এলাকায় তালমা নদীর পাড় কেটে ট্রাক্টরে নেয়া হচ্ছে। একই চিত্র ফুলতলা কাঁটাবাড়ি ফরেস্ট এলাকায়। তবে তালমা ডিয়াবাড়ি এলাকায় পাড় কাটা ট্রাক্টরের শ্রমিকরা জানিয়েছেন, তাদের পরিবহন মালিক আলিম একই এলাকার নুরু এমপি নামের এক ব্যক্তির কাছে ক্রয় করে নিয়েছেন। স্থানীয় সিদ্দিক,করিমুল, আলতাব জানান, এভাবে নদীর পাড়ের মাটি কেটে নিলে বর্ষার মৌসুমে পানি ঢুকে ব্যাপক ভাঙনের সৃষ্টি হবে।এতে ঘরবাড়ী, ফসলি জমি ভাঙনের হুমকিতে রয়েছে।নদীর পাড় কাটার এ উৎসব বন্ধ সহ এর সাথে জড়িত অসাধু বালু ব্যাবসায়ীদের শাস্তির আওতায় আনার দাবী জানান তারা।

এদিকে পরিবেশ বিদদের কাছে জানা যায়, এভাবে কোনরকম পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়া যত্রতত্র নদীর পাড় কাটলে নদীর গতিপথ পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। এতে আশেপাশের ফসলি জমি,বিভিন্ন স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এসব নদীর পাড় কাটা বন্ধ করতে ব্যার্থ হলে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়বে।এ ব্যাপারে পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুদুল হক মুঠোফোনে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পরে পাহারা বসানো হয়েছে এবং প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button