রংপুরসারাদেশ

জলপাই গাছে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার পেড়াল বাড়ি বড় মিস্ত্রী পাড়া গ্রামে অনন্ত চন্দ্র রায় (৬০) নামে এক বৃদ্ধা আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে জলপাই গাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।
নিহত অনন্ত চন্দ্র রায় উপজেলার পেড়াল বাড়ি বড় মিস্ত্রী পাড়া গ্রামের দীপেন চন্দ্র রায়ের ছেলে।
যানা যায়, অনন্ত চন্দ্র রায় ৫ বছর আগে বিভিন্ন রোগের আক্রান্ত ও প্যারালাইসিস রোগী ছিলেন । পরে সুস্থ হলেও দীর্ঘ দিন মানসিক চাপ নিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। তার লাশ বাড়ি হতে ২০০ ফিট দুরে একটি জলপাই গাছে গলায় রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

তার স্ত্রী কবিতা রানী জানান, গতকাল রাতে বাসায় এসে খাওয়া দাওয়া করে রাতে বাসায় ছিলেন। তবে কোন ঝগড়া বিবাদ ও মারামারি বা, অন্য কোন কিছু হয়নি।

পরে এলাকাবাসী জানা জানি হলে, দেবীগঞ্জ থানায় বিষয় টি জানান। দেবীগঞ্জ থানার এসআই সহিদুল ইসলাম ও তাহার সহকর্মী সহ পেড়াল বাড়িতে ঘটনা স্থলে যান এবং ঘটনা স্থলে গিয়ে দেখেন
অনন্ত চন্দ্র রায় গলায় রশি দিয়ে ফাঁস লেগে মরে ঝুলে আছে জলপাই গাছের সঙ্গে।
এলাকাবাসী সুত্রে আরো জানা যায়, যে অনন্ত চন্দ্র রায়ের কোন শত্রু নেই তিনি একজন ভালো মানুষ ছিলেন, উনি দীর্ঘ দিন ধরে মানসিক চাপ নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন মর্মে এলাকা বাসির ধারনা।

পরক্ষনে দেবীগঞ্জ থানার এস আই সহিদুল ইসলাম সার্কেল অফিসার রুনা লায়লা কে বিষয়টি জানালে মৃত অনন্ত চন্দ্র রায়ের লাশ ময়না তদন্ত করার নির্দেশ দেন এবং থানায় নিয়ে আসেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button